SMM (ফেসবুক মার্কেটিং) এর মাধ্যমে। কীভাবে লাইকস প্লানেটে দিনে ৩ ডলার ইনকাম করতে পারবেন

এই পর্বে আমি আপনাদের দেখাব কীভাবে অতি দ্রুত লাইকসপ্লানেটে কাজ করে দিনে ৩ ডলারের অধিক ইনকাম করতে পারবেন।
আপনি কী জানেন আপনার নেট স্পিড যদি নূন্যতম ১৮ কেবিপিএস স্পিড এভারেজ হয় তাহলে আপনি মাত্র ৩০ মিনিটের মধ্যে .১ ডলার ইনকাম করতে পারবেন। আর যদি মিনিমাম ৪ ঘন্টা আপনি শ্রম দিতে পারেন তাহলে আপনি ১ ডলার ইনকাম করতে পারবেন।
তো শুরু করা যাক কিভাবে দ্রুত ইনকাম করবেন।
সাইন আপ করার পর আপনি নিচের চিত্র অনুসরণ করুন।
http://adf.ly/kiPFC
দেখবেন ছবির বাম পাশে আর্নস পয়েন্টস নামে একটি অপশন আছে। সেখানে আপনি আপনার মাউস নিয়ে যান। ফেসবুক নামে একটি অপশন দেখতে পাবেন। আর্নস পয়েন্টস ক্যাটাগরিতে যে কয়েকটি অপশন আছে তন্মধ্যে ফেসবুক এর কাজ করে সবচেয়ে দ্রুত ইনকাম করা যায়।
ফেসবুক লাইক, শেয়ার, ফটো লাইক, ফলোয়িং করার জন্য প্রথমে আপনি আপনার ফেসবুক ইউজার নেইম প্রোভাইড করে একাউন্ট চিনে দিবেন। এক্ষেত্রে পারসোনাল প্রোফাইল ইউজ না করাই উত্তম। কারণ অনেক খারাপ ছবি বা ফাউল লোক থাকে যাদের লাইক বা ফলো করতে হয়। এজন্য আপনি একটি ফেক প্রোফাইল ক্রেইট করে সেই আইডি আপনি লাইকস প্লানেটে ইউজ করতে পারেন। আর যে ভাইদের ফেক প্রোফাইল আছে তাদের আর নতুন করে ক্রেইট করার পয়োজন নাই।
ফেসবুক প্রোফাইল এড করার পর যে কাজটি করবেন সেটা আপনার সময় এবং মেগাবাইট বাচাবে। সেটা হল আপনি আপনার ব্রাউজারের কন্টেন্ট সেটিংস এ গিয়ে ইমেজ লোড বন্ধ করে দিন। এটি যদি আপনি সাক্সেসফুল্লি করতে পারেন তাহলে আপনি দ্রুত লাইক, শেয়ার সব করতে পারবেন। এভাবে আপনার পয়েন্ট প্রচুর পরিমানে বাড়তে থাকবে।
আপনার যখন লাইক দেওয়া শেষ হবে তখন আপনি আবার রিলোড দিবেন তাহলে আপনি আবার নতুন পেজ পাবেন। সবচেয়ে টাকা এবং পয়েন্ট পাওয়া যায় পেজ লাইক এবং ফটো লাইকে।
এখানে আপনি লাইক করবেন, পেজ শেষ হবে, আবার রিলোড দিবেন।
যখন আপনি দেখবেন আপনি মিনিমাম ৫০০ পয়েন্ট অর্জন করেছেন তখন আপনি উপরের ছবির মত আর্নস পয়েন্ট ট্যাবে গিয়ে নিচে দেখবেন ডেইলি কন্টেস্ট, সেখানে ক্লিক করে আপনি আরও বোনাস পয়েন্টস জিততে পারবেন।
আরও শত শত পয়েন্ট জিততে চাইলে আপনি একটি সিম্পল ব্লগ তৈরী করে ইংলিশে আপনি আপনার পেমেন্ট প্রুফ সহ লাইকস প্লানেটের কাজের বর্ননা দিয়ে একটি ব্লগ তৈরী করবেন। তারপর সেটা আপনি Earn per blog এ গিয়ে আপনার ব্লগের এড্রেস সাবমিট করবেন। এভাবে আপনি নূন্যতম না হলেও ৫০০ পয়েন্টস জিততে পারবেন।
[মনে রাখবেন ৫০০০ পয়েন্টেস এ ১ ডলার]
সুতারং একটু কষ্ট করলে ফ্রি ফ্রি আপনি অনেক পয়েন্টস পাবেন।

ছুটির দিনে মজার মজার কিছু গেম খেলুন ও সময় কাটান পিসি এবং মোবাইল এর জন্য।

পিসি গেম ডাউনলোড করুনঃ

১। Star Racing:

রেসিং প্রিয় মানুষের জন্য এই গেম।
গেমটির সাইজঃ ১৬ এমবি
ডাউনলোড করুন
২। Wizard Land:

এই গেম টি একটু অ্যাডভেনচার টাইপ এর। অবশ্যই অনেক মজার গেম
গেমটির সাইজঃ ২৮ এমবি
ডাউনলোড করুন
৩। Police Supercars

পুলিশ চোর খেলুন এই গেমে। খেলেই দেখুন মজা পাবেন এই সময়।
গেমটির সাইজঃ ৬৪ এমবি
ডাউনলোড করুন

অ্যান্ডএড ব্যাবহার কারীদের জন্যঃ

অনেকে যারা অ্যান্ডএড মোবাইল ব্যাবহার করেন তাদের জন্য এই গেম গুলো দেখুন খেলুন সময় কাটান।
৪।Temple Run 2

আশা করি গেমটির সম্পর্কে বেশি কিছু বলা লাগবে না, খেলেই দেখুন তাঁর পরে কথা।
গেমটির সাইজঃ ৩২ এমবি
ডাউনলোড করুন
গুগল প্লে থেকে নামাতে
৫।Doodle Jump

এই গেমটি ভাল লাগবে আশা করি ডাউনলোড করে খেলুন।
গেমটির সাইজঃ২৫ এমবি
ডাউনলোড করুন
গুগল প্লে থেকে নামাতে

জাভা মোবাইল ব্যাবহার কারিদের জন্যঃ

অনেকেই আছেন যারা জাভা মোবাইল  ব্যাবহার করেন, তাদের জন্য আমার ২ টি গেম দেয়া থাকল ভাল লাগলে ডাউনলোড করে খেলবেন।
৬।Mostofa:

এই গেমের কথা যদি কেউ না জানে তাহলে তো তাঁর গেম খেলাই ব্রিথা। সে যাই হোক এই গেম হোল সবার চেনা ও জনপ্রিয় এক গেম। খেলুন ও মজা নিন।
গেমটির সাইজঃ ৭০৭ কেবি
ডাউনলোড করুন
৭।T20 Premier League:

এবার খেলুন ক্রিকেট খেলা, খেলুন আর মজা করুন।
গেমটির সাইজঃ ৯৩ কেবি
ডাউনলোড করুন

$25 ডলার সহ ফ্রিতে নিন payoneer Master card, Bangladesh থেকে এখনি sign up করুন।না দেখলে চরম মিস করবেন!!!!!!

টিউটোরিয়ালবিডির পক্ষথেকে যানাই আন্তরিক অভিনন্দন ।আশাকরি সবাই ভালো আছেন ভুল হলে ক্ষমা করবেন।মুলকথায় আশাযাক,
আজকের টিউন কিভাবে $25 সহ একটি payoneer Master card, ফ্রিতে পাবেন।এমন কি আমি নিজেও পেয়েছি।চলুন শুরু করা যাক কিভাবে sign up করবেন?
নিচের ছবি সহ লিংক গুলো অনুসরন করুন । যা যা লাগবেঃ
  • একটি ই-মেইল ,তবে gmail হলে ভালো হয়।
  • National ID card বা Driving licence ।
চলুন শুরু করা যাক, এখান থেকে payoneer master card sign up এ ক্লিক করুন এর পর নিচের মত একটি পেজ পাবেন
1
তারপর এখানে Sign up> তে ক্লিক করুন এর পর নিচের মত একটি পেজ পাবেন
2
এখানে ৩ টি stpe রয়েছে যথাঃ
  1. Step Here
  2. Step ll
  3. Step lll
প্রথমে 1. Step Here এ ক্লিক করুন তারপর একটি ফরম আসবে এখানে আপনার personal info যেমন ই-মেইল ,পাসওয়ার্ড ,ঠিকানা, ফোন নাম্বার ,zip cod/postal cod এখানে zip cod/postal cod হলো post office code
এখানে Addres এর যায়গায় পুর বাড়ির ঠিকানা দিতে হবে কেননা এই ঠিকানায় মাস্টার কার্ডটি আসবে তাই কনোকিছু বাদ রাখবেন না।
Step ll : এখানে Acount info এর জন্য ফর্ম সঠিক ভাবে পুরন করুন।
Step lll : এখানে Parsonal Varification এ ই-মেইল Varification চাইবে এবং এই ফর্ম সঠিক ভাবে পুরন করুন । তারপর Finish Button এ ক্লিক করুন। তাহলে আজ এপর্যন্তই।ধন্যবাদ সবাই কে।।।।
বিঃদ্রঃ মাস্টারকার্ডটি আসতে ২০-২৫ দিন সময় লাগবে।আমার কার্ড আসতে ২৬ দিন সময় লাগছে!!!!!

যদি আপনারা না পারেন আমার সাথে যোগাযোগ করতে পারেন স্কাইপে shohanbd211

আমাদের সাথে একটিভ থাকতে আমাদের ফেসবুক গ্রুপ এ জয়েন করতে পারেন।।

এবার আয় করুন ফ্রি বিটকয়েন প্রতি ঘণ্টায়[1 BITCOIN = $819.36!!!]

বিটকয়েন কি?
বিটকয়েন হল ওপেন সোর্স ক্রিপ্টোগ্রাফিক প্রোটকলের মাধ্যমে লেনদেন হওয়া সাংকেতিক মুদ্রা। বিটকয়েন লেনদেনের জন্য কোন ধরনের অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠান, নিয়ন্ত্রনকারী প্রতিষ্ঠান বা নিকাশ ঘরের প্রয়োজন হয় না। ২০০৮ সালে সাতোশি নাকামোতো এই মুদ্রাব্যবস্থার প্রচলন করেন। বিটকয়েনের লেনদেন হয় পিয়ার টু পিয়ার বা গ্রাহক থেকে গ্রাহকের কম্পিউটারে বা মোবাইলে । বিটকয়েনের সমস্ত প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয় অনলাইনে একটি উন্মুক্ত সোর্স সফটওয়্যারের মাধ্যমে অথবা কোন ওয়েব সাইটের মাধ্যমে ।
বর্তমানে ১টি বিটকয়েনের মূল্য প্রায় ৮১৯.৩৬ ডলার ।
অর্থাৎ 1 BITCOIN = $819.36 !!!
বিটকয়েন
বিটকয়েন একাউন্টঃ
আপনাকে প্রথমে একটি বিটকয়েন অ্যাড্রেস তৈরি করা লাগবে । এই অ্যাড্রেস সাধারনত ৩৪ Character -এর হয় । এই কারনেই এটা এতো বেশি সিকিউর ।
ধাপঃ
১। প্রথমে এই লিঙ্কে যান । এরপর নিচের মত একটা পেজ আসবে ।

২। Email(1) এর বক্সে আপনার মেইল অ্যাড্রেস এবং Password(2) এর বক্সে আপনার পাসওয়ার্ড দিয়ে Create Bitcoin Wallet(3) লিঙ্কে ক্লিক করুন ।
৩। এরপর আপনাকে ইমেইল অ্যাড্রেস ভেরিফাই করেত বলবে । আপনার ইমেইল অ্যাড্রেসে যান এবং Verify My Email Address-এ ক্লিক করুন । এরপর নিচের মত একটা পেজ আসবে । (যদি না আসে তাহলে করুন তাহলে আসবে ।)

৪। এখান থেকে Account Setting(1) থেকে Bitcoin Addresses(2) এর উপরে ক্লিক করলে নিচের মত একটা পেজ আসবে । এরপর Create New Address(3) করে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন । নিচের মত একটা অ্যাড্রেস(4) তৈরি হবে । এটাকে সেইভ করে অথবা কপি করে রাখুন পরে কাজে লাগবে ।

আপনি যে একাউন্টটা এই মাত্র খুললেন সেটা একটা অনলাইন ব্যাংক একাউন্ট । এটা অনেকটা পেপাল এবং পেইজা এর একাউন্টের মতই । এর মাধ্যমেই আপনি পেমেন্ট পাবেন । আপনি যে বিটকয়েন আর্ন করবেন সেটা এই একাউন্টের এড্রেসে পাঠানো হবে ।
[ বিঃদ্রঃ আপনি যে ইমেইল এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে ওপরের একাউন্ট খুললেন সেটা কোন যে জায়গায় সেইভ করে রাখুন । কারণ এটা হারিয়ে গেলে আপনার সব শেষ । ]
বিটকয়েন আয়ঃ
ধাপঃ
১। প্রথমে এই লিঙ্কে যান । নিচের মত একটা পেজ আসবে ।
এখান থেকেঃ (১নং অংশে)
Your Bitcoin Address – এ কিছুক্ষণ আগে যে বিটকয়েন অ্যাড্রেস তৈরি করলেন সেটা দিন ।
Password For Your Account – এখানে আপনার পাসওয়ার্ড দিন ।
Repeat Password – এখানে পুনরায় একই পাসওয়ার্ড দিন ।
Your Email – এখানে আপনার ইমেইল দিন ।
ব্যাস এরপর SIGN UP বাটনে ক্লিক করুন । আপনার একাউন্ট হয়ে গেছে । ইমেইল ভেরিফাই করা লাগবে না ।

২। এরপর ওপরের চিত্রে ২নং চিহ্নিত অংশের ঘরগুলো পুরন করুন এবং কেপচা দিয়ে LOGIN বাটনে ক্লিক করুন । এরপর নিচের মত পেজ আসবে । এরপর ১নং চিহ্নিত অংশের কেপচা দেখে ২নং চিহ্নিত বক্স পূরণ করে ROLL!(3) এ ক্লিক করুন ।

৩। এরপর যদি নিচের চিত্রের মত টাইমার(2) উঠা শুরু করে তাহলে তাহলে আপনি Success । আর যদি Invalid Code লেখা আসে তাহলে আবার TRY করুন হয়ে যাবে । এভাবে প্রতি ঘণ্টায় আপনি বিটকয়েন আর্ন করতে পারবেন । আবার ১ ঘন্টা পর আসুন এবং কেপচা পূরণ করে ROLL-এ ক্লিক করুন । দেখবেন একাউন্টে বিটকয়েন যোগ হয়েছে । এভাবে ১ ঘণ্টা পর পর ওয়েব সাইটে যান এবং আর্ন করতে থাকুন । নিচের চিত্রে দেখুন ৩নং চিহ্নিত অংশে আমার আর্ন দেখাচ্ছে ।

পেমেন্টঃ
এবার আসি পেমেন্টের কথায় । এটা ১০০% পে করে কারন আমি তিনবার পেমেন্ট পেয়েছি ।
এরা প্রতি সোমবার পে করে । আপনার একাউন্ট Balance যদি 0.00005460 বিটকয়েনের বেশি হয় তাহলে সেটা অটোমেটিকভাবে সোমবারে আপনার কয়েনবেইস(ওপরে যেটা তৈরি করলেন) একাউন্টে চলে যাবে । আপনার কিছু করতে হবে না ।
আর হ্যাঁ আপনি রেফার করেও 50% পর্যন্ত আয় করতে পারবেন । আপনার Homepage-থেকে Refer বাটনে ক্লিক করলে আপনার রেফারেল লিঙ্ক দেখতে পারবেন ।

আর যেকোন সমস্যায় এই গ্রুপে পোষ্ট করুন ।
ধন্যবাদ । ভাল থাকবেন ।

সহজে মাসে ৫০-১০০ ডলার ইনকাম করুন । দিনে ২০ মিনিট কাজ করে।।

আমি মাস তিনেক আগে একটা ওয়েব সাইটে একজনকে দেখলাম সে লিক্ন সর্ট্ (URL Short) করে প্রয় ৬০০ ডলার কামাইছে ৪ মাসে । ওয়েব সাইটের নাম হল অ্যডএফ.লে । আমি তার রেফারেলে সেখানে রেজিট্রেসন করলাম ও বিভি্ন্ন লিক্ন অ্যডএফ.লে ওয়েব সাইটে গিয়ে sort করে অন্য ওয়েব জনপ্রিয় সাইটে বিভিন্ন বিষয় পোস্ট করে সেই পোস্টে sort  লিক্ন গুলো দিয়ে দিলাম।সেদিন থেকে শুরু আজ তিনমাস পর  আমার হাতে টাকা পেয়ে খুশিতে সবার প্রথম আপনাদের জানালাম। হাতে পেলাম মানে আমি এলার্ট্-পে থেকে চেক রিকুয়েস্ট করছিলাম সেই চেক পাওয়ার সাথে সাথে আমি ব্যাংকে গিয়া ভাঙ্গায়ে আনছি ।
প্রথমে আমি এই সাইটকে Scam বা প্রতারক মনে করে ছিলাম । পরে Google থেকে ইনফরমেশন নিলাম দেখলাম যে কোম্পানিটি খুব ভালো । তারা ঠিক মত টাকা দেয় কোন ২ নম্বরই করে না। তারা প্র্রতি সপ্তাহের সোমবারে টাকা যার যার একাউন্টে পাঠিয়ে দেয় । এখানে বলে রাখি মিনিমাম তারা ৫ ডলার হলে আপনার পে-প্যাল আথবা এলাট-পে তে প্রতি সোমবারে আটোমেটিক  আপনার  পে-প্যাল আথবা এলাট-পে তে পাঠিয়ে দেবে। প্রথমে আমার ৫ ডলার হতে ৭ দিন সময় লাগছে। পরে অবশ্য কম লাগছে।
আসলে এটি কাজ করে যদি কেউ তাদের সাইটে রেজিট্রেশন করে তখন তারা ইউজারদের URL SORT করার সুজোগ দেয় যদি   কে উ যে কোন লিক্ন দেওয়া হয় তখন তারা একটি  Sort Link দেয়। এই লিক্ন যে কোন ওয়েব সাইটে দিলে এবং লিঙ্ক Click একটি এড আসবে সেই এডটি তে Ad Skipped  করলে আসল  লিক্ন পওয়া যাবে। আমার মনে হয় খুব সহজ বিষয় ।
রেজিট্রেশন করতে এই লিক্ন আথবা অ্যড.লে তে গিয়ে সাইন আপ করুন।তারপর কিছু জনপ্রিয় ওয়েব সাইট ঠিক করুন যেখানে আপনি sort url দিবেন । তারপর যে কোন মুভি,গান,চটি,গল্প বা যে কোন লিক্ন অথবা যে কোন ডাইনলোড লিক্ন কপি করে সাইটে গিয়ে উপরের  ঘরে লিক্ন পেস্ট করে ‍Shrink চাপ দিন । তাহলো নতুন লিক্ন আপনাকে দেখাবে । আর এই লিক্ন যে কোন ওয়েব সাইটে বা কমেন্ট সেকশনে দিয়ে দিন। এই লিক্নে যে click  করবে বা যত click পরবে ততো টাকা পাবেন। কারন এরকম আনেক পোস্ট আমি ফোরামে করছি ।সেখানে যে ডাউনলোড লিক্ন সেখানে কিল্ক করলো আমি টাকা পাই এবং কেউ যদি অ্যাড Skipp  করে তার পরও আপনি টাকা পাবেন । click  করলই টাকা।আর যত লিক্ন বানাবেন সাব গুলো বিভিন্ন ওয়েব সাইটে দিবেন। আমি প্রতিদিন আধঘন্টা কাজ করতাম বিভিন্ ওয়েব সাইটে লিক্ন দিতাম। প্রথম টাকার পরিমান কম মনে হতে পারে তবে আপনাদের dailyএকটা টারগেট থাকতে হবে যেমন সব লিক্ন মিলে আথবা যের কোন লিক্ন প্রতিদিন ১২০০ বার যেন ক্লিক পরে তাহলে ১ ডলার মোত পাবেন + রেফারেল। প্রথমে কস্ট মনে হলেও পরে সহজ হবে ২০ মিনিট কাজ করলে আনেক টাকা আয় করতে পারবেন।একটা সময় লিক্ন বেরে গেলে আরো টাকা আসবে। মনে রাখবেন লিক্ন কিন্তু অনেক দিন থাকে। তবে দেশি ভিত্তিক  ভি উ তে টাকার পরিমান বারে যেমন আপনার লিক্ন যদি আমেরিকায় ১০০০ বার দেখা হয তবে আপনি ২-৪ ডলার পাবেন ।
এখন বলব কিভাবে টাকা হাতে পাবেন।
পে-পালের জন্য যখন টাকা একটু বেশী হবে তখন বাংলাদেশ থেকে পে-পাল বিডি থেকে টাকা তুলতে পারবেন।
Payoneer (মাষ্টার কাড) এর মাদ্ধমে আপনি টাকা তুলতে পারবেন।।
Payza  জন্য যেমন আমি চেক পাইছি সেটা ব্যাংক থেকে টাকা তুলে নিছি। আপনারা চেক,ক্রেডিট কার্ড অথবা ব্যাংকে পাঠাতে পারেন। আমার রেফারেল লিক্ন থেকে রেজিসট্রেশন করতে চাইলে Click করুন। 
আপনারা যদি কেউ কাজ করতে চান তবে আমার সাথে স্ক্যাইপে যোগাযোগ করতে পারেন। shohanbd211


আমাদের সাথে একটিভ থাকেতে আমাদের ফেসবুক গ্রুপ এ জয়েন করতে পারেন

অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল দিয়ে টাকা উপার্জন করুন ১০০% কার্যকর

আমি আজকে জানাবো কিভাবে আমরা Android মোবাইল ব্যবহার করে টাকা আয় করতে পারি ।
১. যাদের Android Mobile আছে তাদের জন্য ।
প্রথমে Android Mobile দিয়ে  Money Machines  Apps টা Download করুন ।
মোবাইল এ ইন্সটল করার পর তা start করুন ।
Apps টা start করার পর সেটা আপনার Email ID দিয়ে Log in করুন ।
Log in করার পর একটা মেসেজ বক্স আসবে Email এ. কোড টা দিয়ে দিন এবং ok করুন ।
আপনার Invite Code পাবার জন্য Invite এ যান সেখানে আপনার কোড পাবেন।
এখন আপানার যত Facebook বন্দু আছে সবাইকে Invite করুন এই Money Machines Apps  টা ডাউনলোড করার জন্য  দিয়ে দিবেন এতে তার ও লাভ হবে আপনার ও হবে।
আর একটা উপায় এ এই Money Machines দারা আয় করা যায় আপনি ইচ্ছা করলে তাদের Play Store থেকে Android Apps ডাউনলোড করেও আয় করতে পারেন ।
২.যাদের Android Mobile নাই তাদের জন্য ।
যাদের Android Mobile নাই তারা মন খারাপ করেন না তাদের জন্য আমি আছি না এখন আমি বলবো কিভাবে Android Mobile না থাকলে ও PC থেকে কিভাবে আপনে উপরোক্ত কাজ গুলো করতে পারবেন।
প্রথমে নিচের লিংক এ সফটওয়্যার টা ডাউনলোড করুন

এটা Android PC emulator যা আপনার পিসি কে Android মোবাইল করে ফেলবে ।
এখন উপরের নিয়ামে Money Machines ডাউনলোড করুন এবং বন্ধু দের Invite করুন ।

অনলাইনে আয় করুন ইমেজ বিক্রয় করে

আমরা নিয়মিত যারা পত্র পত্রিকা পড়ে থাকি বা ইন্টারনেট ব্যবহার করে থাকি তারা অনেকেই জানি যে অনলাইনে কাজ করে বর্তমানে অর্থ উপার্জনের জন্য রয়েছে অসংখ্য উপায়।
যেমন নিজের ওয়েব সাইটে গুগলের বিজ্ঞাপন প্রদর্শনের মাধ্যমে আয়, ফ্রিল্যান্সিং, ইকমার্স, আর্টিকেল রাইটিং ইত্যাদির মাধ্যমে আয়। কিন্তু আমরা অনেকেই হয়তো জানি না যে অনলাইলে আয় করার জন্য আরো কয়েকটি গুরুত্বপূর্ন মাধ্যম রয়েছে যাদের মধ্যে আরেকটি উল্লেখযোগ্য মাধ্যম হচ্ছে অনলাইনে ছবি বা ইমেজ সেলস করে ও যে আয় করা যায়। আমাদের মধ্যে যাদের ফটোগ্রাফীর শখ আছে বা যারা অনলাইনে নিজেদের তোলা ছবি সেলস বা বিক্রয় করে আয় করতে আগ্রহি তাদের ক্ষেত্রে এ অনলাইনে ছবি সেলস করে আয় করার বিষয়টি বেশ চমকপ্রদ বলে মনে হতে পারে। আর এ বিষয়ে যারা আগ্রহী তারা অনলাইনে ছবি সেলস করে আয় করার জন্য যে বিষয় গুলোর সম্পর্কে ধারনা রাখতে হবে সেগুলো হলো:
ধাপ: ১.
•       সুন্দর ভাবে ছবি তোলার দক্ষতা
•       ভালো উন্নত মানের ডিজিটাল ক্যামেরা সংগ্রহে থাকা
•       এডবি ফটোশপে ছবি নিয়ে কাজ করার অভিজ্ঞতা
•       ইন্টারনেট সংযোগ এবং ইন্টারনেট ব্যবহারের অভিজ্ঞতা
•       সর্বপরি ছবি সংক্রান্ত ভালো জ্ঞান
 
ধাপ: ২. কোন কোন সাইটে আপনি ইমেজ বিক্রি করবেন তা আপনাকে জানতে হবে। যে সকল সাইটে আপনি ছবি বিক্রি করতে পারবেন সেরকম কেয়েকটি সাইটের নাম নিন্মে প্রদান করা হলো
•       fotolia
•       istock
•       dreamstime
•       123rf
•       shutterstock
 
ধাপ: ৩. এ ধাপে আপনাকে জানতে হবে ছবির কোয়ালিটি বা মান কেমন হবে। ভালো মানের ছবির জন্য সাধারনত সাধারণত ৪-১৬ মেগাপিক্সেলের ছবির প্রয়োজন। এখনে আপনাকে মনে রাখতে হবে যে এক এক একটি সাইটের নিয়ম একেক রকম তাই কোন কোন সাইটে আপনার ছবির কোয়ালিটির পরীক্ষায় উত্তীর্ন হবার প্রয়োজন হতে পারে।
ধাপ: ৪. এ ধাপে আপনাকে জানতে কোন কোন ব্যক্তিবর্গ বা প্রতিষ্ঠান এই সকল ইমেজ কিনে থাকেন। আমাদের দেশে কপিরাইট আইন ঠিক মতো মানা হয় না বিধায় আমরা অনেক সময় একজনের ছবি অন্য জন ব্যবহার করে থাকি কিন্ত উন্নত বিশ্বে কপিরাইট আইন পুংখানুপুংখভাবে মানা হয় বিধায় বিভিন্ন ওয়েব সাইট,ক্যালেন্ডার,ব্রশিউর সহ বিভিন্ন্ প্রিন্টিং ও ডিজিটাল মিডিয়াতে অসংখ্য ছবি বা ইমেজের প্রয়োজন হয়। এইসব বিভিন্ন প্রয়োজনে  ছবি সংগ্রহের জন্য বিদেশের প্রচুর ক্রেতা রয়েছে।
ধাপ: ৫. এ ধাপে আপনাকে জানতে হবে যে কিভাবে আপনাকে ঐ সকল সাইট অর্থ প্রদান করবে। এইসব সাইটের মাধ্যমে মূলত রয়্যালিটি ফ্রি ছবি বিক্রি হয়। রয়্যালিটি ফ্রি বলতে বুঝায়, একজন কাষ্টমার শুধু একটি বিশেষ কোন কাজের জন্যে একটি নির্দিষ্ট পরিমান অর্থের বিনিময়ে একটি ছবি ডাউনলোড করে ব্যবহার করতে পারবেন। এখানে একই ছবিটি আবারও অন্য কাষ্টমাররাও কিনতে পারবে অর্থাৎ এখানে মেইন ছবিটি অবিকৃত থাকবে। এসকল সাইট মূলত আপনাকে আপনার বিক্রিত ছবির একটি নির্দিষ্ট হারে আপনাকে কমিশন আপনাকে প্রদান করবে। আর এ কমিশন সাধারণত ১৫%-৪০% পর্য়ন্ত হতে পারে।
ধাপ: ৬. এ ধাপে আপনাকে আপনার আপলোডকৃত ছবির জন্য কিওয়ার্ড দিতে হবে যা আপনার ছবি সার্চ করে বের করার জন্য সহায়ক হবে। তাছাড়াও আপনাকে আপনার ছবির জন্য নির্দিষ্ট ছবির ক্যাটাগরি নির্ধারন করে দিতে হবে।
ধাপ: ৭. এ ধাপে আপনাকে খুজে বের করতে হবে যে আপনি কি কি ধরনের ছবি ঐ সকল সাইটগুলোতে বিক্রি করতে পারবেন। আর এ জন্য আপনাকে উল্লেখিত সাইটগুলোতে অনুন্ধান করে গভীর ভাবে বিশ্লেষণ করে আপনার সক্ষমতার দিকে খেয়াল রেখে তা আপনাকে ঠিক করে নিতে হবে।
উল্লেখিত ধাপগুলো আনুসরন করলে আশাকরি আপনারা সফল ভাবে অনলাইনে ছবি বিক্রি করে অনেকে ভালো পরিমান আয় করতে পারবেন। যা ৩০০-৪০০ ডলার বা তারও অধিক হতে পারে। তবে আপনার আয় নির্ভর করবে আপনি কি পরিমান ছবি দিয়েছেন আর আপনার আপলোডকৃত ছবির মান কি রকম।

গ্রাফিক ডিজাইন বিক্রি করে মাসে আয় করুন ৫০০ ডলার, কোনরুপ বিড ছাড়াই

বর্তমান তথ্যপ্রযুক্তির এই যুগে নিজের মেধা আর নিজের দক্ষতাকে পুরো বিশ্বের কাছে তুলে ধরার একটি অন্যতম মাধ্যম হচ্ছে ইন্টারনেট। আর এই ইন্টারনেট ব্যবহার করে পুরো বিশ্বের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে আপনি একদিকে যেমন নিজের মেধাকে করতে পারেন আরো সমৃদ্ধ
ঠিক তেমনি আপনি আপনার মেধা আর দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে ইন্টারনেটকে যোগাযোগের মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার করে বর্হি:বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে প্রচুর অর্থ উপার্জন করেত পারেন। আর ইন্টারনেট বা অনলাইনে অর্থ উপার্জনের জন্য রয়েছে অসংখ্য উপায়। এগুলোর মধ্যে কয়েকটি উল্লেখযোগ্য মাধ্যম হচ্ছে নিজের ওয়েব সাইটে গুগলের বিজ্ঞাপন প্রদর্শনের মাধ্যমে আয়, ফ্রিল্যান্সিং, ইকমার্স, আর্টিকেল রাইটিং ইত্যাদির মাধ্যমে আয়। তবে আমরা সচরাচর বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় যেটি সম্পর্কে সবচেয়ে বেশি শুনে থাকি সেটি হচ্ছে ফ্রিল্যান্সিং। যেখানে আপনাকে আপনার দক্ষতা আর মেধার মনোনিবেশ ঘটিয়ে কাজ করতে হলে প্রথমে আপনাকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের লোকেদের সাথে কাজ পাওয়ার জন্য বিডে অংশগ্রহন করে করতে হবে। আর আপনি যদি বিডে অংশগ্রহন করে সকলের মধ্য হতে নির্বাচিত হতে পারেন তবেই আপনি কাজ করার জন্য মনোনিত হবেন।মূলতঃ কাজের দক্ষতা, সুন্দর পোর্টফোলিও, কভার লেটার ইত্যাদি বিষয়ের উপর ভিত্তি করে ফ্রিল্যান্সিং এ সফল হওয়া যায়। কিন্তু একজন গ্রাফিক ডিজাইনার যদি বিডের মাধ্যমে কাজ না পান, তারপরও সে তার তৈরীকৃত ডিজাইনগুলি বিভিন্ন অনলাইন মার্কেটপ্লেসে বিক্রি করেও অর্থ উপার্জন করতে পারেন। আজ আমি আপনাদের সাথে আলোচনা করব কিভাবে আপনি এই বিড ছাড়াই গ্রাফিক ডিজাইন বিক্রি করে মাসে ভালো আয় করতে পারেন সে সম্পর্কে ।  
বিড ছাড়াই অনলাইনে অর্থ উপার্জনের জন্য রয়েছে অসংখ্য মার্কেটপ্লেস। আর তাদের মধ্যে অন্যতম একটি একটি মার্কেটপ্লেস হচ্ছে graphicriver যেখানে আপনি আপনার আপনার তৈরীকৃত ডিজাইনগুলি বিক্রি করে অনলাইন থেকে আয় করতে পারেন। এটি এমন একটি মার্কেটপ্লেস যেখানে আপনি প্রথাগত বাজারের ন্যায় একটি ডিজাইন একবার নয় বরং একাধিকবারও বিক্রি করতে পারবেন। তবে আপনাকে এক্ষেত্রে যে সকল ধাপ অনুসরন করতে হবে তা পর্যায়ক্রমে উপস্থাপন করছি।
ধাপ ১:  এ ধাপে প্রথমে আপনাকে graphicriver সাইটটিতে প্রবেশ করে আপনার ইউজারনেম, ইমেইল ঠিকানা এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে সাইন আপ করতে হবে।
ধাপ ২: এ ধাপে আপনাকে আপনার প্রোফাইল পেজটি আকর্ষণীয়ভাবে পূরণ করতে হবে। এ ক্ষেত্রে আপনি কাস্টমারদের চাহিদাকে প্রাধান্য দিতে পারেন যা আপনার জন্য লাভজনক হবে।
ধাপ ৩:  এ ধাপে আপনাকে জানতে হবে আপনি সেখানে কি কি ডিজাইন সাবমিট করতে পারবেন। এখানে আপনি সাবমিট করতে পারবেন ওয়েব এলিমেন্ট, বিজনেস কার্ড, লোগো ডিজাইন, ওয়েব টেমপ্লেটস, আইকন, অবজেক্ট গ্রাফিক, টেক্সারস, ভেক্টর গ্রাফিকস, ইত্যাদি।তাছাড়াও আপনি আরও সাবমিট করতে পারবেন ওয়েব ডিজাইনের বাটন, ফরমস, নেভিগেশন বার ইত্যাদি ।
ধাপ ৪: এ ধাপে আপনাকে ঠিক করতে হবে আপনি কি তৈরি করে সাবমিট করবেন। ধরুন আপনি সুন্দর একটি লোগো ডিজাইন করলেন। এর পর আপনার কাজ শুধু ঐ ডিজাইনটি নির্দিষ্ট ভাবে নিয়ম অনুসারে graphicriverসাইটটিতে উপস্থাপন বা সাবমিট করা । একবার ডিজাইন আপলোড বা সাবমিট করা হলে গ্রাফিকরিভার সাইট কর্তৃপক্ষ ৭২ ঘন্টা সময়ের মধ্যে আপনাকে জানিয়ে দিবে আপনার ডিজাইনটি গৃহীত হয়েছে কি হয়নি। আপনার ডিজাইনটি গ্রাফিক রিভার সাইট কর্তৃক গৃহীত হলে বাকি কাজ ঐ সাইটের দায়িত্ব প্রাপ্ত কতৃপক্ষই আপনার জন্য করে দেবে।
ধাপ ৫: এ ধাপে আপনার ডিজাইনের জন্য একটি মূল্য নির্ধারণ করা হবে। আর তা $১ থেকে $১০ ডলার পর্যন্ত হতে পারে যা নির্ভর  করবে ডিজাইনের কোয়ালিটির উপর ভিত্তি করে। যদি আপনার ডিজাইনটি বিক্রি হয় তাহলে প্রাথমিকভাবে ঐ সাইটের দায়িত্ব প্রাপ্ত কতৃপক্ষ প্রতিবার বিক্রির জন্য আপনার ডিজাইনের নির্ধারিত মূল্যের 40% আপনাকে প্রদান করবে।
আপনি কেমন আয় করতে পারবেন তা নির্ভর করবে আপনার ডিজাইন এর উপর। আর এ জন্য যথাসম্ভব সুন্দর ইউনিক ডিজাইন করুন যাতে কাস্টমারদের তা পছন্দ হয়। মনে করুন আপনার আপলোডকৃত ডিজাইনটি গৃহীত হল এবং এটির মূল্য ধরা হল ৫ ডলার। তাহলে এটি যদি প্রতি মাসে ১০০ বার বিক্রি হয় তবে মাস শেষে আপনার আয়ের পরিমান দাড়াবে ৫০০ ডলার। আর আপনি যদি প্রতি মাসে ৪ থেকে ৫ টি ডিজাইন আপলোড করতে পারেন এবং সবগুলিই সাইট কতৃক গৃহীত হয় তাহলে কিন্তু আপনার মাসিক আয় হবে লোভনীয় পর্যায়ের । তবে আপনাকে ভালো আয়ের জন্য অবশ্যই যথাসম্ভব ইউনিক ডিজাইন তৈরি করতে হবে

অ্যাডসেন্স থেকে আয়ের সেরা ১০ কৌশল

ব্লগ থেকে আয়ের অন্যতম মাধ্যম হলো গুগল অ্যাডসেন্স। বিশ্বব্যাপী লাখ লাখ ওয়েব মাস্টার অ্যাডসেন্সের মাধ্যমে আয় করছেন। তাদের মধ্যে অনেকেই সফল এবং আয়ের পরিমান ভালো।
তাদের সফলতার পেছনে রয়েছে বেশি কিছু কৌশল।
 
এ ক্ষেত্রে সফলরা গুগল অ্যাডসেন্স থেকে আয়ের ক্ষেত্রে কিছু বিষয় মেনে চলার পরামর্শ দিয়ে থাকেন। তাদের মতে, এগুলো মানলে  ভালো আয় করা সম্ভব।
 গুগল অ্যাডসেন্সের আয় বাড়াতে এমনই কিছু বিষয় নিয়ে এ প্রতিবেদন। এগুলো মেনে চললে একদিকে আয়ের পরিমান যেমন বাড়বে, তেমনি অ্যাডসেন্স বাতিল হওয়ারও সম্ভবনা কমে যাবে। কারণ অ্যাডসেন্স বাতিল হওয়ার বিষয়টিও পাবলিশারদের ভাবিয়ে তোলে।
 ১. এমন বিষয় নিয়ে ওয়েবসাইট করবেন, যে বিষয়ে আপনার আগ্রহ এবং খুব ভালো জানাশোনা রয়েছে।
 ২. রাজস্ব বাড়াতে একাধিক ওয়েবসাইট নিয়ে কাজ করুন, প্রতি সাইটে একটি নিশ (নির্দিষ্ট বিষয়) নিয়ে লিখুন।
 ৩. গুগল চায় ভালো মানের ইউনিক কনটেন্ট, যা সার্চে ভালো পজিশনে থাকবে। তাই বিষয়টিতে নজর দিতে হবে।
 ৪. গুগল সাপোর্ট করে না এমন সব ভাষায় লেখা সাইটে অ্যাড বসানো থেকে বিরত থাকুন। (যেমন, বাংলা ভাষার সাইটে অ্যাড বসাবেন না। যদিও শিগগির বাংলা সাইট গুগল অ্যাডসেন্স সমর্থন করবে বলে ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। বিষয়টি চালু না হওয়া পর্যন্ত বাংলা সাইটে অ্যাডসেন্স ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন।)
 ৫. হাই পেয়িং কিওয়ার্ড টার্গেট না করে, ব্লগে কোয়ালিটি কনটেন্টের দিকে জোর দিন। কিওয়ার্ড টার্গেট করে ও কনটেন্ট ডেভেলপ করে নিয়মিত সাইটকে আপডেট রাখার চেষ্টা করুন।
 ৬. অ্যাডের কোড পরিবর্তন করার চেষ্টা করবেন না। যদি পরিবর্তন করতেই হয়, তাহলে অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট থেকে পরিবর্তন করুন।
 ৭. ছবির সঙ্গে বা পাশাপাশি গুগলের অ্যাড কখনই বসাবেন না। এতে ভিজিটর বিভ্রান্তিতে পড়ে আর এটা গুগল কখনো সাপোর্ট করে না, যা অ্যাডসেন্স ব্যান হওয়ার কারণ হতে পারে।
 ৮. সাইটের সঙ্গে মানানসইভাবে অ্যাড বসান। ভিসিটরকে বিভিন্ন লেখার (Click here, Click this) মাধ্যমে বিজ্ঞাপনে ক্লিক করতে অনুপ্রাণিত করবেন না।
 ৯. নিয়মিত আপনার অ্যাডসেন্স অ্যাকাউন্ট ভালভাবে চেক করবেন। হঠাৎ করে কেন আপনার ব্লগে ক্লিক বেড়ে গেল তা চেক করবেন। অসঙ্গতি লক্ষ্য করলে সাথে সাথে সেটি অ্যাডসেন্স কর্তৃপক্ষকে জানান। আর তখন আপনার অ্যাকাউন্টটি নিরাপদ থাকবে।
 ১০. অ্যাডসেন্স সচল থাকা স্বত্ত্বেও আরেকটি অ্যাকাউন্ট খোলার চেষ্টা করবেন না। এতে বর্তমান অ্যাকাউন্টটি নিষিদ্ধ হয়ে যেতে পারে। কেননা গুগল কখনও মাল্টি অ্যাকাউন্ট ব্যবহারের অনুমতি দেয় না।

 বিস্তারিত জানতে চাইলে আমাদের ফেসবুক গ্রুপ এ জয়েন করতে পারেন...

ডাউনলোড করুন IDM এর ৭.১ ভার্শন। শুধু ইন্সটল দিন আর ব্যবহার করুন আজীবন, কোন ক্র্যক বা প্যাচের দরকার নেই…

কেমন আছেন সবাই? আজ আমি আপনাদের সামনে IDM এর  ভারশন 7.1 নিয়ে হাজির হলাম যার যার দরকার এখনি ডাউনলোড করে নিন কারন আমরা জানি IDM ছাড়া আমাদের এক দিনও চলে না

ইন্টারনেট ডাউনলোড ম্যানেজার আমাদের সবার কাছেই খুব পরিচিত তাইনা? এক্টূ বেশী যদি না বলে হয়ে থাকে তাহলে বলতে পারি, ডাউনলোডের অপর নাম ইন্টারনেট ডাউনলোড ম্যানেজার। :)
আর সিরিয়াল জনিত সমস্যার কারনে আমরা বেশীদিন এটা ব্যবহার করতে পারিনা, আবার প্যাচ ফাইল দিয়ে করলেও নানা রকম সমস্যা দেখা দেয়।
এইবার সমস্যাগুলোকে ঝেটীয়ে বিদায় দ্যেন। ইচ্ছেমতন ব্যবহার করুন IDM এর নতুন প্রিএক্টীভেট ভার্সন idm 7.1 full । শুধুমাত্র ডাউনলোড করে নিন আর ইন্সটল করুন আপনার কম্পিউটারে তারপর ব্যবহার করুন নিশ্চিন্তে। আমি গত এক বছর যাবত এটা ব্যবহার করছি কোন সমস্যা হয়নি।

সকল সফটওয়্যার ফ্রি ডাউনলোড করুনঃ  All Software Free Download

IDM এর লেটেষ্ট ভার্শন ফ্রি ডাউনলোড করুন ক্রক এবং লাইসেন্স কি সহঃ   IDM Free Download

লিঙ্ক বিল্ডিং এর জন্য ১০০ টি Web 2.0 সাইট সংগ্রহে রাখুন ।

সবাই কেমন আছেন ? আমাদের যাদের ওয়েবসাইট আছে তারা SEO সম্পর্কে মুটামুটি হলেও জানি । আর SEO এর লিঙ্ক বিল্ডিং এর একটা সেকশন হচ্ছে Web 2.0 বেকলিঙ্ক করা । যারা লিঙ্ক বিল্ডিং এর কাজ করে তারা ভাল করেই জানেন এ web 2.0 বেকলিঙ্ক কতটা জরূরি কিওয়ার্ড SERP এর ক্ষেত্রে । তাই আজকে আপনাদের কাছে শেয়ার করলাম কিছু হাই পেজ রেঙ্কের web 2.0 সাইট । ধন্যবাদ পোস্টটি পড়ার জন্য ।
web-20-site
URLPRLINK TYPE
http://wordpress.com/9Do-follow
http://www.xing.com/8No-follow
http://www.merchantcircle.com/8Do-follow
http://www.last.fm/8No-follow
http://my.opera.com/8No-follow
http://www.livejournal.com/8No-follow
http://www.wix.com/8Do-follow
https://www.tumblr.com/8Do-follow
http://www.weebly.com/8Do-follow
http://www.wikispaces.com/7No-follow
http://rhizome.org/7Do-follow
http://blog.fc2.com/7Do-follow
http://page.tl/7Do-follow
http://www.goodreads.com/7No-follow
http://www.zoho.com/7Do-follow
http://www.couchsurfing.org/7Do-follow
http://www.webs.com/7Do-follow
http://www.sfgate.com/7No-follow
http://www.diigo.com/7No-follow
http://www.newsvine.com/7Do-follow
http://www.rediff.com/7Do-follow
http://www.angelfire.lycos.com/7No-follow
http://www.blog.co.uk/6Do-follow
http://www.zimbio.com/6Do-follow
http://www.dailystrength.org/6Do-follow
http://www.wetpaint.com/6No-follow
http://www.shutterfly.com/6Do-follow
http://www.care2.com/6No-follow
http://www.blogcatalog.com/6No-follow
http://hubpages.com/6Do-follow
http://www.purevolume.com/6Do-follow
http://www.43things.com/6No-follow
http://www.xanga.com/6No-follow
http://skyrock.com/6No-follow
http://socialmediatoday.com/6Do-follow
http://areavoices.com/6Do-follow
http://webstarts.com/6Do-follow
http://www.redbubble.com/6Do-follow
http://www.dmusic.com/6Do-follow
https://jux.com/6Do-follow
http://www.fotki.com/us/en/6No-follow
http://journalspace.com/5No-follow
http://www.smore.com/5Do-follow
http://www.kickofflabs.com/5Do-follow
http://www.autisable.com/5No-follow
http://www.insanejournal.com/5Do-follow
http://www.ourstory.com/5Do-follow
http://www.mouthshut.com/5No-follow
http://www.ziki.com/5Do-follow
http://www.flixya.com/5Do-follow
http://sciencestage.com/5No-follow
http://www.thoughts.com/5No-follow
http://www.jambase.com/5Do-follow
http://jukeboxalive.com/5Do-follow
http://zoomshare.com/5Do-follow
http://www.migente.com/5Do-follow
http://www.asianave.com/5Do-follow
http://myanimelist.net/5Do-follow
http://www.geckogo.com/5Do-follow
http://cookeatshare.com/5No-follow
http://www.wayn.com/5Do-follow
http://www.soup.io/5Do-follow
http://www.devhub.com/5Do-follow
http://www.sosblogs.com/5Do-follow
http://350.com/5Do-follow
http://www.beep.com/5Do-follow
http://www.hazblog.com/5Do-follow
http://www.webgarden.com/5Do-follow
http://www.blinkweb.com/5Do-follow
http://snappages.com/5Do-follow
http://www.zootoo.com/5No-follow
http://workitmom.com/5Do-follow
http://pen.io/5Do-follow
http://www.spruz.com/5Do-follow
http://www.webspawner.com/5Do-follow
http://www.doomby.com/5Do-follow
http://www.blogbaker.com/5Do-follow
http://www.quietwrite.com/5No-follow
http://bcz.com/4Do-follow
http://www.phpchatsoftware.com/oxwall/4Do-follow
http://community.mercubuana.ac.id/4No-follow
http://arduino.org/4Do-follow
http://babykick.com/4Do-follow
http://datingsite-free.com/4Do-follow
http://www.sohoos.com/4Do-follow
http://www.lagbook.com/signin/warn/home4Do-follow
http://www.freewebsite-service.com/4Do-follow
http://fotopages.com/4Do-follow
http://wallinside.com/4Do-follow
http://getjealous.com/4No-follow
http://lafango.com/4No-follow
http://www.nexopia.com/4Do-follow
http://www.hpage.com/4Do-follow
http://spyuser.com/3Do-follow
http://www.capodimonte.com/3Do-follow
http://olo.ru/3Do-follow
http://meridianamagazine.org/ang/3Do-follow
http://globalfriendsnet.com/3Do-follow
http://okoo.net/3Do-follow
http://keek.com6Do-follow

 

Copyright @ 2013 ইন্টারনেটে আয় করুন .